মসজিদ আক্রমণের পর নিরাপত্তা বাহিনীর গাফলতিকে দুষলেন মোহাকিক

মসজিদ আক্রমণের পর নিরাপত্তা বাহিনীর গাফলতিকে দুষলেন মোহাকিক

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন
মোহাম্মদ মোহাকিক

আফগানিস্তানের প্রধান নির্বাহী আবদুল্লাহ আব্দুল্লাহর দ্বিতীয় উপদেষ্টা মোহাম্মদ মোহাকিক আল-জাওয়ার মসজিদে হামলায় নিহত একজন কাবুল ব্যবসায়ীর পরিবারের সাথে দেখা কারার সময় বৃহস্পতিবার রাতের ঐ প্রাণঘাতি ঘটনা প্রতিরোধে ব্যর্থতার জন্য নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠানকে দায়ী করেছেন ।

মোহাকিক বলেন যে, নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠানগুলোর কাজের মধ্যে অসংগতি ‘সারা দেশে বিদ্রোহী হামলা বৃদ্ধি’ এর প্রধান কারণ । তিনি দাবি করেন, ‘সরকারের হাতে পরিকল্পনা রয়েছে কিন্তু ঘটনাগুলো প্রমাণ করে যে পূর্ব প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও এই ধরনের ঘটনা প্রতিরোধে ব্যর্থ হচ্ছে সবাই । কারণ শত্রু আমাদের সীমানার অন্য দিকে বসবাস করছে যেই সীমানার দৈর্ঘ্য ২০০০ কিলোমিটারেরও বেশি এবং সীমান্তের অন্য দিক থেকে শত্রুরা আমাদের দেশে প্রবেশ করে’।

রমজান হুসেনজাদা নামে কাবুলের ঐ ব্যবসায়ী ৬৬ বছর আগে মায়ান ওয়ার্ডাক প্রদেশের বিওসোড জেলায় জন্মগ্রহণ করেন । তিনি বিবাহিত ও সাত সন্তানের জনক ছিলেন । হুসেনজাদার বন্ধু মোহাম্মদ সারওয়ার বলেন, ‘তিনি (হুসেনজাদা) একজন ভালো মানুষ ছিলেন এবং সবার প্রতিই সহানুভূতিশীল ছিলেন ।’ রমজান হুসেনজাদার পুত্র হাজী আহমদ বলেন, ‘তিনি (হুসেনজাদা) সর্বদা অন্যদের সাহায্য করার চিন্তা করতেন। ড্রাইভার, খুচরা বিক্রেতা থেকে শুরু করে সবাইকেই তিনি সাহায্য করতেন’

এদিকে, সিনিয়র ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ আলী মুরাদ বলেন, আফগান নিরাপত্তা বাহিনী সন্ত্রাসীদের পরাজিত করার জন্য দৃঢ় প্রতিজ্ঞ । ‘আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী সন্ত্রাসীদের সাথে লড়াইয়ে প্রচুর আত্মত্যাগ করে । আমি আফগানদের বলতে চাই যাতে তারা প্রতিরক্ষা এবং নিরাপত্তা বাহিনীর প্রতি তাদের বিশ্বাস না হারায় ।’

গত মাসে এই ঘটনা নিয়ে মোট তিন বার সন্ত্রাসীরা মসজিদগুলিতে হামলা চালায় । এই মাসের শুরুতে, তারা হেরাতের গ্রেট মসজিদ এবং পাকতিয়া প্রদেশে একটি মসজিদকে লক্ষ্য করে এবং কয়েক ডজন বেসামরিক লোককে হত্যা করে।

SOURCEটোলো নিউজ
শেয়ার করুন