নেপালে প্রধান বিচারপতি প্রার্থী বাছাই হয়নি সাংবিধানিক কাউন্সিল সভায়

নেপালে প্রধান বিচারপতি প্রার্থী বাছাই হয়নি সাংবিধানিক কাউন্সিল সভায়

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন

সোমবার প্রধান বিচারপতি পদে প্রার্থী মনোনীত করার জন্য ডাকা সাংবিধানিক পরিষদের (সিসি) একটি বৈঠক কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ হয়েছে। শাসক ও বিরোধী দলগুলোর মধ্যে গুরুতর মতবিরোধের কারণে কোন ফলাফল ছাড়া এই বৈঠক শেষ হয়। সি সি এর প্রাক্তন সদস্য সচিব বর্তমান সরকারের প্রধান সচিব সোমালাল সুবেদী বলেছেন, সোমবারের সভায় প্রধান বিচারপতি পদের জন্য জুডিসিয়াল কাউন্সিলের সুপারিশকৃত নামগুলির ওপর ছোটখাট আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। সিপিএন-ইউএমএল চেয়ারম্যান অলি প্রস্তাব পরীক্ষা করার জন্য আরো সময় চেয়েছেন বলে ২৯ শে জুন সিসির পরবর্তী বৈঠকটি আহ্বান করা হয়েছে।

সিংহ দরবারে সোমবারের সভায়, প্রধানমন্ত্রীর শের বাহাদুর দেওবা প্রধান বিচারপতি পদের প্রার্থী হিসেবে গোপাল প্রসাদ পরাজুলিকে মনোনীত করার প্রস্তাব দেন। জানা গেছে যে সি পি এন-ইউএমএল চেয়ারম্যান কে.পি. শর্মা ওলি এই পদের জন্য গোপাল পারাজুলির ব্যাপারে আপত্তি জানিয়েছেন। নেপালের সংবিধানের ২৩৮ অনুচ্ছেদে প্রধান বিচারপতি এবং এবং সাংবিধানিক সংস্থাগুলির প্রধান নিয়োগের  ব্যাপারে  সাংবিধানিক পরিষদের সিদ্ধান্তের একটি বিধান রয়েছে। বিধান অনুযায়ী, পদাধিকার বলে  প্রধানমন্ত্রী কাউন্সিলের চেয়ারম্যান হবেন। এছাড়া হাউস স্পিকার, জাতীয় পরিষদের চেয়ারম্যান, বিরোধী দলীয় নেতা ও সংসদের ডেপুটি স্পিকার সিসি’র সদস্য হবেন। ৭ই জুন সাবেক প্রধান বিচারপতি সুশীল কারকি অবসর গ্রহণের পর থেকে পদটি খালি আছে। বর্তমানে জ্যেষ্ঠতম সুপ্রিম জুডিশিয়াল বিচারপতি গোপাল পরাজুলী সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এর আগে ১৩ জুন, বিচারিক পরিষদ (জেসি) প্রধান বিচারপতির পদে ছয়জন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতির নাম সুপারিশ করেছিলেন।

গোপাল পরাজুলী, দীপক রাজ জোশি, ওম প্রকাশ মিশ্র, দেবেন্দ্র গোপাল শ্রেষ্ঠ, চন্দ্দ্দ্র শামশার জে বি আর এবং জগদীশ শর্মা পাণ্ডেলকে সুপ্রিম কোর্টের শীর্ষ পদে রাখার জন্য সুপারিশ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন