গণযুদ্ধ কয়েক ব্যক্তির রোমাঞ্চ নয় : প্রচন্ড

গণযুদ্ধ কয়েক ব্যক্তির রোমাঞ্চ নয় : প্রচন্ড

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন
পুষ্প কমল দহল (প্রচন্ড )

নেপালের সিপিএন (মাওবাদী সেন্টার) চেয়ারম্যান এবং সাবেক প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দহল (প্রচন্ড ) বলেছেন, ‘গণযুদ্ধ’ কয়েক ব্যক্তির রোমাঞ্চ নয়, বরং তা ইতিহাসের অনিবার্যতার পরিণতি।

কাঠমান্ডুতে মঙ্গলবার ফেডারেশন অব নেপালি জার্নালিস্ট-এর সাধারণ সম্পাদক উজির মাগারের স্মৃতিকথা ‘আনশ’-এর মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে মাওবাদী আন্দোলনের প্রধান ব্যক্তিত্ব দাবি করেন, প্রয়োগশালাসহ কয়েকজন নেপালি সাংবাদিকের বই দেশে রাজনৈতিক বিতর্কের সৃষ্টি করেছে।

দশকব্যাপী যুদ্ধকে নেতিবাচকভাবে তুলে ধরার ব্যাপারে তার উদ্বেগ প্রকাশ করে প্রচন্ড বলেন, সঙ্ঘাতকে আর্থ-সামাজিক, অর্থনৈতিক ও মনস্তাত্ত্বিক মাত্রার দৃষ্টিভঙ্গি এবং নেপালি সমাজে বিদ্যমান অন্যান্য মাত্রার আলোকে বিশ্লেষণ করা উচিত।

ওই যুদ্ধের নায়ক প্রচন্ড দাবি করেন, যুদ্ধের ফলে যে পরিবর্তন সাধিত হয়েছে তা নেপালের ইতিহাসে বিপুল ও দীর্ঘ স্থায়ী প্রভাব ফেলেছে।

দেশের ভেতর থেকেই সঙ্ঘাতের সমাধান কামনা করা উচিত বলে সম্পাদক যুবরাজ গিমাইরের বিবৃতির ব্যাপারে প্রচন্ড বলেন, দেশের মধ্যে থেকেই তার দল ইস্যুটির সমাধানের সর্বাত্মক চেষ্টা করেছে। কিন্তু রাজা জ্ঞানেন্দ্রের কারণে তা করা সম্ভব হয়নি।

তিনি বলেন, মাগারের স্মৃতিকথা ‘আনশ’ অত্যন্ত প্রাণবন্ত বই। এতে নেপালি ঘটনাবলী প্রাঞ্জল ভাষায় বর্ণনা করা হয়েছে। এই বইটি কোনো ধরনের বিতর্ক সৃষ্টি করে না।

অনুষ্ঠানে যুবরাজ গিমাইর, নারায়ন ওঙ্গল, গুনরাজ লুইটেল, গোবিন্দ আচার্য, ইউএমএল নেতা সুর্য থাপা, এফএনজে চেয়ারম্যান মহেন্দ্র বিস্তাও আলোচনায় অংশ নেন।