ভুটান-ভারত সীমান্তে এখনও চলছে সীম কার্ডের অপব্যবহার

ভুটান-ভারত সীমান্তে এখনও চলছে সীম কার্ডের অপব্যবহার

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন

জিলেফু পুলিশ প্রতিবেশী ভারতের আসাম জেলার পুলিশের কাছ থেকে তথ্য পেয়েছে যে সীমান্ত জুড়ে বিভিন্ন অপহরণের ঘটনায় মুক্তিপণ দাবী করতে ভুটানের সিম কার্ড ব্যবহার করা হচ্ছে। যদিও অপহরণকারী এবং অপহৃত উভয়ই ভারতীয় নাগরিক কিন্তু  মুক্তিপণ দাবী করে ফোন কল করা হচ্ছে ভুটানের সিম কার্ড থেকে যা সারপাং এর কাছে ভারত-ভুটান সীমান্ত থেকে সংগঠিত হচ্ছে।

জিলেফু পুলিশ কর্মকর্তারা বলেছেন,  তারা জানতে পেরেছিল যে সিম কার্ডটি ট্রাংসার একজন সন্ন্যাসীর, যিনি দাবি করেছিলেন যে তিনি তিন বছর আগে ঐ সিম কার্ডটি হারিয়েছিলেন। দেশের দুইটি পরিষেবা প্রদানকারী কোম্পানি তাশিসেল এবং ভুটান টেলিকম  উল্লেখ করেছে যে সিম কার্ডগুলির যথাযথ ব্যবহারে সচেতনতা সৃষ্টির ব্যাপক প্রচেষ্টা চালানো হলেও ভুটানের মানুষরা অনেক বেশী উদাসীন।

তাশিসেলের মানব সম্পদ কর্মকর্তা সাঙ্গে তেনজিন বলেন, শনাক্তকরণের সঠিক কাগজপত্র জমা দেওয়ার পরই কেবল সিম কার্ডগুলি সক্রিয় করা হয়। এছাড়া কিছু ব্যতিক্রম বাদ দিলে পরিষেবা সরবরাহকারী কোম্পানিগুলি প্রতি ভোক্তার জন্য শুধুমাত্র একটি সিম কার্ড প্রদান করে। তিনি আরও বলেন যে সিম কার্ডগুলির যথাযথ ব্যবহারের লক্ষ্যে ধারাবাহিকভাবে টেলিভিশন ও এসএমএসের মাধ্যমে সচেতনতা সৃষ্টি করছে। অতীতে, সীমান্তের ওপারের মানুষের কাছে সিম কার্ড বিক্রি করার অভিযোগে বেশ কয়েকজন ভুটানীকে অভিযুক্ত করা হয় যা পরবর্তীতে নিরপরাধ ভুটানীদের অপহরণ করে মুক্তিপণের দাবী করার জন্য ব্যবহার করা হয়। এই পরিপ্রেক্ষিতে রয়াল ভুটান পুলিশ (আরবিপি) সিম কার্ডের সাবস্ক্রিপশনে প্রয়োজনীয় স্ট্রিমলাইনিং এর জন্য উচ্চ পর্যায়ের হস্তক্ষেপের প্রস্তাব দেয়।

আরবিপি উল্লেখ করেছে যে, ভুটানে কাজ করছে বা ভুটানে বসবাস করছে এমন সকল বিদেশী এবং প্রতিবেশী রাজ্যে আসাম এবং পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন স্থানে ভুটানের সিম ব্যাবহার হচ্ছে। অপহরণকারীদের দ্বারা ব্যবহৃত কিছু সিম কার্ড নিবন্ধিত হয়নি বা গ্রাহকের সঠিক বিবরণ ছাড়া বিক্রি হয়েছে বলে পুলিশ দাবি করেছে।

print
SOURCEকুয়েনসেল
শেয়ার করুন