নতুন সংবিধান রচনা প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখবে শ্রীলংকা সরকার

নতুন সংবিধান রচনা প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখবে শ্রীলংকা সরকার

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন
রাজিথা সেনারত্ম

শ্রীলংকার নতুন সংবিধান রচনার প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে বলে আবারো ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সরকার। তবে, এই সংবিধান বলবৎ করা হবে কিনা সে বিষয়ে পার্লামেন্ট চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে।

বুধবার মন্ত্রিসভার সাপ্তাহিক বৈঠকের পর প্রেসব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজিথা সেনারত্ম বলেন, এ নিয়ে কারো অহেতুক উত্তেজিত হওয়ার কারণ নেই।

তিনি বলেন, নতুন সংবিধান বিলে দেশের বিভিন্ন শ্রেণী থেকে আসা অনেক প্রস্তাব রয়েছে এবং দেশের বৌদ্ধ ধর্মের বর্তমান অবস্থান সেখানে অক্ষুণ্ন রাখা হয়েছে। প্রয়োজনে নতুন সংবিধান প্রশ্নে গণভোটের আয়োজন করা হবে বলেও তিনি জানান।

মহানায়নক থেরাস-এর সাম্প্রতিক বিবৃতির ব্যাপারে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন যে, ২০১৫ সালের নির্বাচনে জনগণ প্রেসিডেন্ট মৈত্রিপালা সিরিসেনার ইশতেহারের পক্ষে ভোট দিয়েছেন। সেখানে সুস্পষ্টভাবে একটি নতুন সংবিধান গ্রহণের কথা বলা আছে। এই ইশতেহার বাস্তবায়িত হলেই কেবল তারা তাকে আরেকবার ম্যান্ডেট দেবেন।

সেনারত্ম বলেন, ২০১৫ সালের ৮ জানুয়ারির নির্বাচনে বহুসংখ্যক বৌদ্ধভিক্ষুও ভোট দিয়েছেন। তাদের কথা ভুলে গেলে চলবে না। রাস্তার বিক্ষোভকারীদের মতো তারা [মহানায়নক থেরাস] কিভাবে নির্বাহী প্রেসিডেন্সির বিলোপ চান তা আমার বুঝে আসে না। তাদের রাজনৈতিক এজেন্ডা সবার কাছে স্পষ্ট হয়ে গেছে।

জনগণের রায়ের প্রতি অশ্রদ্ধা দেখানো যাবে না উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, সিরিসেনা সকল সম্প্রদায়কে ঐক্যবদ্ধ করে দেশকে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিতেই সংবিধান পরিবর্তনের কথা বলেছেন।

ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ভূমি ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী গায়ানথা করুনাথিলকা বলেন যে, কিছু সুযোগ সন্ধানি রাজনীতিক এসব অহেতুক উত্তেজনা তৈরি করছে এবং মন্দির ও বাজারে গিয়ে মিথ্যা কথা বলছে। তাদের পার্লামেন্টে এসে যুক্তি দিয়ে কথা বলা উচিত। সিদ্ধান্ত গ্রহণের এখতিয়ার পার্লামেন্টের। খসড়া সংবিধান নিয়ে অংশীজনদের মধ্যে এখনো আলোচনা চলছে।