চাল আমদানির জন্য চারটি দেশের তালিকা করল শ্রীলঙ্কা সরকার

চাল আমদানির জন্য চারটি দেশের তালিকা করল শ্রীলঙ্কা সরকার

 নমুনা পরীক্ষার জন্য ভারত, পাকিস্তান,  ইন্দোনেশিয়া ও মিয়ানমার সফর করবেন কর্মকর্তারা, সম্ভাব্য স্থানীয় ঘাটতি পূরণের জন্য ১০০,০০০ মেট্রিক টন চাল আমদানি করা হবে।

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন

শ্রীলঙ্কার শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, প্রথম দফা মূল্যায়নের পর, সরকার ইন্দোনেশিয়া, পাকিস্তান, ভারত ও মিয়ানমার এই চারটি দেশকে ১০০,০০০ মেট্রিক টন চাল আমদানি করার সম্ভাব্য উৎস হিসাবে তালিকাভুক্ত করেছে। শ্রীলংকা থেকে খাদ্য প্রযুক্তিবিদসহ বিশেষজ্ঞ কর্মকর্তাদের একটি দল এইসব দেশে চালের নমুনা পরীক্ষা করতে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। শ্রীলংকার শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রী বাথিউডেনের উদ্ধৃতি দিয়ে ঐ বিবৃতিতে বলা হয়েছে “আমরা ইন্দোনেশিয়া, মায়ানমার ও পাকিস্তানের চালের নমুনা পরীক্ষা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বিশেষজ্ঞ কর্মকর্তাদের একটি দল এই দেশগুলো সফর করবে এবং চালের নমুনা পরীক্ষা করবে, পরে আমরা কলম্বো থেকে চূড়ান্ত সরবরাহকারীর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেব।”

তিনি আরও বলেন “আমরা এখন ১০০,০০০ মেট্রিক টন সিদ্ধ ও সামবা চাল আনতে চাচ্ছি, সরকারী ক্রয় প্রক্রিয়ার মাধ্যমে এটা করা হবে”।

এছাড়া ভারত থেকে অতিরিক্ত ১০০,০০০ মেট্রিক টন চাল কিনার কথাও ভাবছে সরকার।

বাথিউডেন বলেন “প্রয়োজনে সরবরাহকারী দেশগুলির বেসরকারী খাত থেকে সহযোগিতা নেবার জন্যে উন্মুক্ত আছি আমরা। প্রেসিডেন্ট সিরিসেনার নির্দেশে আমার অধীনে সমবায় পাইকারী ব্যবস্থার (সিডব্লিউইউ) এই প্রচেষ্টার মূল কেন্দ্রবিন্দু হবে।”

গত মাসে কয়েকটি দেশের রাষ্ট্রদূত এবং হাই কমিশনারের সাথে চাল ক্রয়ের বিষয়ে আলোচনা করেছিলেন মন্ত্রী বাথিউডেন।

জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (এফএও) এবং বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচী (ডব্লুএফপি) গত মাসে একটি রিপোর্টে সতর্ক করে পূর্বাভাস দিয়েছে যে, দেশটির প্রধান খাদ্য চালের উৎপাদন, ২০১৭ সালে প্রায় ৪০% কমে ২.৭ মিলিয়ন টনে নামবে। রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে ২০১৬ সালের তুলনায় ২০১৭ সালের ‘ইয়ালা’ মৌসুমে ধানের ফলন কমপক্ষে ২৪% কমবে।

শেয়ার করুন