ঢাকার বাতাসে ধুলা সহনীয় মাত্রার তিনগুণ

ঢাকার বাতাসে ধুলা সহনীয় মাত্রার তিনগুণ

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন

বাতাসে যে পরিমাণ ধুলাকে সহনীয় পর্যায় ধরা হয়, ঢাকা শহরে তার তিনগুণ বেশি ‘অতিক্ষুদ্র বস্তুকণা’ থাকার কথা জাতীয় সংসদকে জানিয়েছেন পরিবেশে ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু।

সংসদের রোববারের অধিবেশনে আওয়ামী লীগের এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে ‘নরওয়েজিয়ান ইনস্টিটিউট ফর এয়ার রিসার্চ’ এর গবেষণার তথ্য তুলে ধরেন মন্ত্রী।

বাতাসে ভাসমান বস্তুকণার (পার্টিকুলেট ম্যাটার বা পিএম) পরিমাপ করা হয় প্রতি ঘনমিটারে মাইক্রোগ্রাম (পিপিএম-পার্টস পার মিলিয়ন) এককে। এসব বস্তুকণাকে ১০ মাইক্রোমিটার ও ২.৫ মাইক্রোমিটার ব্যাস শ্রেণিতে ভাগ করে তার পরিমাণের ভিত্তিতে ঝুঁকি নিরূপণ করেন গবেষকরা।

মন্ত্রী জানান, বাংলাদেশের পরিবেশ সংরক্ষণ বিধিমালা অনুযায়ী বাতাসে প্রতি ঘনমিটারে ১৫০ মাইক্রোগ্রাম পর্যন্ত ভাসমান বস্তুকণা সহনীয় ধরা হয়। সেখানে শুকনো মৌসুমে ঢাকায় এর মাত্রা থাকে ৪৯৯ মাইক্রোগ্রাম পর্যন্ত।

তিনি বলেন, ঢাকা শহরের ধুলি ধূষণের ৫৮ শতাংশের কারণ আশপাশের এলাকার ইটভাটা। আর খোলা অবস্থায় নির্মাণ কার্যক্রম পরিচালনার কারণে ১৮ শতাংশ ও যানবাহনের কারণে ১০ শতাংশ দূষণ হয়।

বর্ষায় দেশের প্রধান শহরগুলোর বাতাস তুলনামূলকভাবে ভালো অবস্থায় থাকলেও শীতে বৃষ্টি না হওয়ায় এবং এই সময়েই উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের চাপ থাকে বলে পরিস্থিতি নাজুক হয়ে ওঠে।

এর ফলে শ্বাসকষ্ট থেকে শুরু করে ঠাণ্ডাজনিত রোগ, শ্বাসনালীর ক্ষতসহ নানা ধরেন মারাত্মক স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগতে হয় শিশু ও বয়স্কদের।