পুলিশের কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগ থেকে মুক্তি পেলেন মালদ্বীপ এমপি আবদুল্লাহ রিয়াজ

পুলিশের কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগ থেকে মুক্তি পেলেন মালদ্বীপ এমপি আবদুল্লাহ রিয়াজ

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন

মোবাইল ফোন আনলক করতে অস্বীকৃতির কারণে বিরোধীদলীয় জুমহুরী পার্টির নেতা ও এমপি আবদুল্লাহ রিয়াজের বিরুদ্ধে পুলিশের কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগ মামলায় নির্দোষ প্রমাণিত হয়েছেন আবদুল্লাহ রিয়াজ । রোববার সকালে ফৌজদারি আদালতের তিনজন বিচারক প্যানেলে রায়ে বলা হয়েছে, পুলিশ কর্মকর্তাদের সাক্ষ্যে অসঙ্গতির কারণে এ মামলায় অভিযুক্ত ব্যক্তির কোন অপরাধমূলক অভিপ্রায় প্রমাণ করা যায় নি। এছাড়া ফৌজদারি কার্যবিধি আইনে উল্লেখিত প্রয়োজনীয় প্রমাণ ছাড়া আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী অন্যায়ভাবে এই সংসদ সদস্যের ফোন জব্দ করেছে বলে বিচারকেরা মন্তব্য করেন।

আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কর্মপালনে বাধা দেয়া প্রথম শ্রেণীভুক্ত অপরাধ যার জন্য চার মাস ২৪ দিনের কারাদন্ড ভোগ করতে হয় । গত এপ্রিলের শুরুতে সংসদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার উদ্দেশ্যে বিরোধী দলগুলো ও সাবেক রাষ্ট্রপতি মামুন আব্দুল গাইয়ুমের মধ্যে নতুন জোট গঠনের পরপরই মালদ্বীপের অন্যতম বিরোধী দল জুমহুরী পার্টির উপ-নেতা ও সাবেক পুলিশ প্রধান রিয়াজকে বিচারের সম্মুখীন করা হয়।

সর্বশেষ পরিস্থিতি অনুসারে দেখা যাচ্ছে যে, বিরোধীদলীয় জোট ক্ষমতাসীন দল ছেড়ে আসা ১০ জনসহ মালদ্বীপ সংসদের মত ৪৫ জন সংসদ সদস্যকে তাদের দলে ভিড়াতে সক্ষম হয়েছে। স্পিকারের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় দফায় অনাস্থা ভোট ২৪ শে জুলাই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এদিকে জুমহুরী দলের প্রধান গাসিম ইব্রাহীমের বিরুদ্ধে সংসদ সদস্যদের অনৈতিকভাবে প্রভাবিত ও ঘুষ দেয়ার অভিযোগে বিচার করা হচ্ছে । গত ২৭ শে মার্চ বিরোধী জোট সংসদের স্পিকারের অভিশংসনের চেষ্টায় ব্যর্থ হওয়ার মাত্র কয়েক ঘণ্টা পর পুলিশ রিয়াজের ফোন জব্দ করে এবং মিথ্যা গুজব ছড়িয়ে দিয়ে পুলিশ বাহিনীর কাজ প্রভাবিত করার চেষ্টা করার অভিযোগে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। বিচারকগণ তাদের রায়ে বলছেন যে, পুলিশ ২৭ মার্চের এই গ্রেপ্তারের মাধ্যমে সংসদীয় আইন লঙ্ঘন করেছে।