স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দুর্নীতিকে বড় চ্যালেঞ্জ মনে করছে আফগানিস্তানের ন্যাটোর কর্মকর্তারা

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দুর্নীতিকে বড় চ্যালেঞ্জ মনে করছে আফগানিস্তানের ন্যাটোর কর্মকর্তারা

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন

গত শনিবার কাবুলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কৌশলগত পরিকল্পনা বাস্তবায়নের বার্ষিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন আফগান ও বিদেশী কর্মকর্তারা যেখানে ন্যাটোর কর্মকর্তারা দুর্নীতি, ক্রয় প্রক্রিয়ায় ব্যর্থতা এবং অদক্ষ ব্যবস্থাপনা “স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কার্যক্রমকে নেতিবাচকভাবে প্রভাবিত করেছে” বলে উল্লেখ করেন।

আফগানিস্তানে রিজোলিউট সাপোর্ট মিশনের স্টাফ প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল ইউরজেন ওয়েইগ্ট বলেছেন, আফগান জনগণ এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় প্রত্যাশা করে আফগান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দেশের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে জনগণের আস্থা অর্জন করবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দীর্ঘসুত্রতার দিকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন যে, মন্ত্রণালয়ে এখন ৪০টিরও বেশী চুক্তি ঝুলে আছে। এদিকে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী তাজ মোহাম্মদ জাহিদ বলেছেন, তিনি বিশ্বাস করেন যে জঙ্গিবাদের চেয়ে দুর্নীতি আরো বেশি বিপজ্জনক। তিনি আফগানিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনীকে সহায়তার জন্য রিজোলিউট সাপোর্ট মিশনের ক্রমবর্ধমান সমর্থনের আহ্বান জানান। তিনি মন্ত্রণালয়ে দুর্নীতির অস্তিত্ব স্বীকার করেন এবং বলেন, “দুর্বল ব্যবস্থাপনা, অদক্ষতা এবং অবহেলা পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের উচ্চ হতাহতের পিছনে প্রধান কারণ”।

একই অনুষ্ঠানে আফগানিস্তান সিকিউরিটি ট্রানজিশন কমান্ডের (সিএসটিসি-এ)কমান্ডার মেজর জেনারেল রিচারার জি কায়যার এবং রিজোলিউট সাপোর্টের উপ প্রধান বলেন যে, আফগানিস্তানের কর্মকর্তারা প্রথম পর্যায়ে মন্ত্রিপরিষদের ভিতরে বিদ্যমান চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে পরামর্শ দেন।
তিনি বলেন, “আপনি সবসময় বাইরে থেকে সব প্রশ্নের উত্তর পাবেন না। আরো টাকা, আরো সরঞ্জাম, আরো নির্মাণ প্রকল্প সব সমস্যা সমধান করবে না। আমি আপনার সব নেতাদেরকে আপনাদের ন্যাশনাল লজিস্টিক সেন্টার ওয়ার্ডাক পরিদর্শন করার আমন্ত্রণ জানাচ্ছি, পরিদর্শন করে দেখুন, কত ধরনের সরবরাহ/সরঞ্জাম পাওয়া যায় এবং জিজ্ঞেস করুন যে কেন তা বিতরণ করা হচ্ছে না। ”

এদিকে, কাবুলের ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত, ডমিনিক জেরমে, অভ্যন্তরীণ মন্ত্রণালয়গুলোতে নেতৃত্বের উন্নতির কথা বলেন। তিনি বলেন “পরিবর্তনের প্রয়োজন আছে, নেতৃত্বের মধ্যে পরিবর্তন এবং পুলিশ কর্মীদের মধ্যে পরিবর্তন দরকার।”

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পরিসংখ্যান অনুসারে দুর্নীতির অভিযোগে ১২ জন জেনারেলসহ অন্তত ৭০০ জন পুলিশ কর্মকর্তাকে এখন পর্যন্ত আদালতে উপস্থিত করা হয়েছে।

SOURCEটলো নিউজ
শেয়ার করুন