বেশিরভাগই চীনকে বিশ্বশক্তি হিসাবে দেখছে: জরিপের তথ্য

বেশিরভাগই চীনকে বিশ্বশক্তি হিসাবে দেখছে: জরিপের তথ্য

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন

আমরা সত্যিকারের অর্থে রয়েছি এক বহুমুখি বিশ্বের মধ্যে। আমেরিকা এখনো এগিয়ে রয়েছে, তবে বিশ্বের বৃহৎ অংশ চীনকে নেতৃস্থানীয় শক্তি হিসাবে দেখে।

এক পিউ সমীক্ষায় দেখানো হয়েছে যে, ইউরোপীয় ইউনিয়নের ১০টি দেশের মধ্যে ৭টি দেশই মনে করে “চীন নেতৃস্থানীয় অর্থনৈতিক শক্তি” (ইতালিতে চীনকে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে যুগ্মভাবে শীর্ষস্থানে মনে করা হয়)। তবে, ভারত অব্যাহতভাবে মনে করে যুক্তরাষ্ট্রই হলো শীর্ষ অর্থনীতির দেশ। প্রকৃতপক্ষে, ৪১% ভারতীয়ের চীনের প্রতি বৈরি দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে আর ২৬ শতাংশের রয়েছে ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি।

জাপান, এশিয়া ও ল্যাটিন আমেরিকার অংশবিশেষের সাথে ভারত যুক্তরাষ্ট্রের দিকেই বেশি ঝুঁকে আছে আর রাশিয়াতে অধিকাংশই বিশ্বাস করে যে চীন হল বিশ্বের অর্থনৈতিক নেতা। কৌতূহলের বিষয় হলো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘদিনের মিত্র অস্ট্রেলিয়ায় প্রতি তিন জনের মধ্যে দুইজন যুক্তরাষ্ট্রের চেয়েও চীন এগিয়ে যাচ্ছে বলে মনে করে। আর এই দেশটির শীর্ষ ব্যবসায়িক অংশীদারও হলো চীন।”

৪৭টি দেশের মধ্যে ৩৮ টি দেশের মতামত চীনের পক্ষে আর ৩৭ শতাংশ হলো চীনের বিপক্ষে। ট্রাম্প, ক্ষমতায় আসার পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অনুমোদন হার দাঁড়িয়েছে ৪৯ শতাংশ আর একেবারে বিপক্ষে মত হলো ৩৯ শতাংশ। যুক্তরাষ্ট্র চীন দুদেশেই তাদের নেতা ট্রাম্প ও শির প্রতি নেতিবাচক মনোভাব রয়েছে।

প্রায় ৫৩% বলেছেন যে তারা জিনপিং এর বৈশ্বিক ইস্যুর ব্যাপারে আস্থা রাখেন না। আর ট্রাম্পের উপর খুব কম বা একেবারে আস্থা রাখেন না এমন সংখ্যা ৭৪ শতাংশ। শি অবশ্য  ট্রাম্পের তুলনায় কম সুপরিচিত। প্রতি পাঁচ জনের মধ্যে একজনের শি’র ব্যাপারে কোন মতামত নেই। অন্য দিকে ট্রাম্পের ব্যাপারে মত দিতে পারেননি এমন সংখ্যা মাত্র ৮ শতাংশ।

ভ্লাদিমির পুতিনকে শি’র চেয়েও কম লোক পছন্দ করে। এক্ষেত্রে একমাত্র জনপ্রিয় নেতা হচ্ছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেল  যার উপর আস্থা রয়েছে ৪২ শতাংশের আর নেতিবাচক মনোভাব ৩১ শতাংশের।

অন্য দেশের মধ্যে রাশিয়া ও নাইজেরিয়া চীনের সবচেয়ে বড় অনুরাগী। এই দু’দেশের  ৭০ শতাংশের বেশি লোকের চীনা নেতৃত্বের প্রতি অনুমোদন রয়েছে। এশিয়ান বড় দেশগুলিতে, চীনের প্রতি মনোভাব  বেশি নেতিবাচকভাবে দেখা যায়। দক্ষিণ কোরিয়াতে এই ব্যাপারে বিশেষ অবনতি লক্ষ্যণীয়।

এশিয়াতে চীনের প্রতি সবচেয়ে ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে অস্ট্রেলিয়ার (৬৪%)। শি জিনপিন এর অনুমোদন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নেতিবাচক, কিন্তু অদ্ভুতভাবে ভারতে আরো বেশি মানুষ তার সম্পর্কে দ্বিধাগ্রস্ত। দক্ষিণ কোরিয়ার অধিকাংশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে নেতৃস্থানীয় অর্থনৈতিক শক্তি (৬৬%) মনে করে।

print
SOURCEটিএনএন
শেয়ার করুন