ভারতের উপ-রাষ্ট্রপতি নির্বাচন : নিজেকে নাগরিক প্রার্থী মনে করেন গোপাল গান্ধী

ভারতের উপ-রাষ্ট্রপতি নির্বাচন : নিজেকে নাগরিক প্রার্থী মনে করেন গোপাল গান্ধী

কলকাতা প্রতিনিধি,
শেয়ার করুন

ভারতে উপ-রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিরোধী দলগুলো সর্বসম্মতভাবে তাদের প্রার্থী হিসেবে সাবেক কূটনীতিবিদ, পশ্চিমবঙ্গের গভর্নর গোপাল কৃষ্ণ গান্ধীর নাম ঘোষণা করেছে। দেশটির পার্লামেন্টের উভয় কক্ষের সদস্যরাই এই নির্বাচনে ভোট দেবেন।

তবে গান্ধী নিজেকে নির্দলীয় ব্যক্তি হিসেবে ঘোষণা করেছেন। তিনি বলেছেন, তিনি নিজেকে নাগরিক প্রার্থী মনে করেন। অনেক দলের অনুরোধে তিনি এই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

দি হিন্দুকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে গান্ধী বলেন, তারা সংবিধানের মূল্যবোধের জন্য নিরপেক্ষ ও বস্তুনিষ্ঠ ব্যক্তি চেয়েছিল। আমি মনে করি, এটা হলো ভারতের গণতান্ত্রিক সহনশীলতার লক্ষণ।

এই নির্বাচনের গুরুত্ব সম্পর্কে তিনি বলেন, এখন সময় এসেছে, বৃহত্তর দৃষ্টিকোণ থেকে বিষয়টি দেখা। আমরা ক্ষীণ দৃষ্টিতে আক্রান্ত। বিভিন্ন ইস্যুতে আমাদের আরো বৃহত্তর দৃষ্টিভঙ্গির অধিকারী হতে হবে। এটা দলীয় রাজনীতির বিষয় নয়। মনে হচ্ছে, সব দলই অন্তর্দশন ও আত্মসমালোচনার সামর্থ্য হারিয়ে ফেলেছে।

তিনি বলেন, রাষ্ট্রপতি, উপ-রাষ্ট্রপতি এবং গভর্নররা রাজনৈতিক প্রতিযোগিতায় নেই, এর বাইরে তারা গুরুত্বপূর্ণ।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে ভারতে যে রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিরাজ করছে, তাতে আসন্ন রাষ্ট্রপতি ও উপ-রাষ্ট্রপতি নির্বাচনকে দেখা হচ্ছে একদিকে বিজেপি ও তার মিত্র এবং অন্যদিকে কংগ্রেস এবং অন্যান্য ‘সেক্যুলার’ দলগুলোর মধ্যকার আদর্শিক লড়াই হিসেবে।

সত্তরের দশকে রাষ্ট্রপতি ভি ভি গিরির নির্বাচনের কথা উল্লেখ করে গোপাল কৃষ্ণ গান্ধী বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে রাষ্ট্রপতি গিরি তার ব্যক্তি সামর্থ্যরে ওপর অটল ছিলেন, নজরে না পড়া গুরুত্বপূর্ণ অনেক বিষয়কে সামনে এনেছিলেন।
তিনি বলেন, ভি ভি গিরির পর থেকে এসব নির্বাচন হয়ে পড়েছে আদর্শিক বিষয়ে।

print
শেয়ার করুন