রাজনৈতিক নেতৃত্বের পরিবর্তনের মুখে স্থিতিশীল আছে পাকিস্তানের অর্থনীতি

রাজনৈতিক নেতৃত্বের পরিবর্তনের মুখে স্থিতিশীল আছে পাকিস্তানের অর্থনীতি

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন

পাকিস্তানের রাজনৈতিক বিপর্যয়ের মুখেও দেশটির অর্থনীতি ও বাজার ব্যবস্থা কোন ক্ষতি ছাড়াই টিকে আছে এবং প্রাথমিকভাবে একটি নিম্নমুখী ধারা এলেও তা শীঘ্রই কাটিয়ে উঠতে পেরেছে ব্যবসা ও শিল্পগুলো। ২8 জুলাই সুপ্রিম কোর্ট সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে অযোগ্য ঘোষণার পর পাকিস্তানের ইসলামাবাদ ও করাচি শেয়ারবাজারে হালকা প্রতিক্রিয়া দেখা যায়। ঘোষণার প্রথম কয়েক ঘন্টা সমযয়ের একটি প্রাথমিক পতনের পরে,  শেয়ারবাজার ধীরে ধীরে আগের অবস্থায় ফিরতে শুরু করে। তবে ঋণের সরবরাহ এবং অবকাঠামোর ক্রমবর্ধমান অস্থিতিশীলতার কারণে, ডলারের বিপরীতে পাকিস্তান রুপির মূল্য প্রায় ৩ শতাংশ কমেছে।

করাচি শেয়ারবাজারের একজন শেয়ারহোল্ডার মঞ্জুর আহমেদ গালফ নিউজকে বলেন,  “শরীফের চলে যাওয়া  স্টক মার্কেটে প্রভাব ফেলার কথা ছিল কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে বাজারটি কোনও বড় ধাক্কা খায়নি এবং কয়েক ঘন্টার মধ্যে স্থির হয়ে আসে।”

রুপির চাপ

দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক স্টেট ব্যাঙ্ক অফ পাকিস্তান (এসবিপি) গত বছরের অক্টোবর থেকে এই বছরের জুলাইয়ের মধ্যে ৩.৯ বিলিয়ন ডলার রিজার্ভ কমার কথা নিশ্চিত করেছে। ২ আগস্ট ডন পত্রিকায় প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী ২০১৬-১৭ সালে সরকারে ৪.৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের ঋণ নেওয়ার পরেও রিজার্ভ কমে যায়।

তবে, স্টেট ব্যাংক মুদ্রার পতনের ক্ষেত্রে দ্রুত হস্তক্ষেপ করে এবং ৩ আগস্টের মধ্যেই রুপী তার ১০৮ থেকে ১০৫.৪/ডলারে বিক্রি হয়।

অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে দিচ্ছেন যে, ক্রমবর্ধমান ঋণভিত্তিক প্রকল্পের ফলে মুদ্রা বাজারে একটি বড় আঘাত লাগে। বছরের শেষ চতুর্থাংশের মধ্যে ঋণভিত্তিক প্রকল্প দাঁড়ায় প্রায় ২ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে যা বাৎসরিক ৭ বিলিয়ন ডলার পর্যন্ত যেতে পারে।

print
SOURCEগালফ নিউজ
শেয়ার করুন