শারদ যাদব বলছেন দু’ভাগ হবে জে ডি (ইউ)

শারদ যাদব বলছেন দু’ভাগ হবে জে ডি (ইউ)

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন

লালুপ্রসাদ যাদবের নেতৃত্বাধীন আর জে ডি এবং কংগ্রেসের সঙ্গে তৈরি ‘মহাজোট’ ছেড়ে মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার বিজেপি শিবিরে ভিড়ে যাওয়ায় ভাঙনের মুখে এগিয়ে চলেছে জে ডি (ইউ)। বিহারের নয়া শাসকজোটের প্রধান শরিক জে ডি (ইউ)-র গুরুত্বপূর্ণ নেতা শারদ যাদব মানতে পারেননি নীতীশের ‘মহাজোট’ ভাঙার সিদ্ধান্ত। তিনি বলছেন, দু’ভাগ হবে জেডি (ইউ) – এক দল সরকারপন্থী, আরেকটা হবে কর্মীদের।

এবার বৃহস্পতিবার থেকে বিহারের বিভিন্ন প্রান্তে নিজের বক্তব্য পৌঁছে দিতে কার্যত তিনদিনের ‘জনসংযোগ যাত্রা’ শুরু করলেন শারদ যাদব। তাঁর এই কর্মসূচিই শেষ পর্যন্ত জেডি (ইউ)-র আনুষ্ঠানিক ভাঙন ত্বরান্বিত করতে চলেছে বলে মনে করছেন পর্যবেক্ষকরা। বিহারে বিজেপি বিরোধী ‘মহাজোট’ ভেঙে যাওয়ার পরে এদিনই প্রথম রাজ্যে এলেন জেডি (ইউ)-র প্রবীণনেতা শারদ যাদব। পাটনা বিমানবন্দরে পা দিয়েই দলের নেতা তথা মুখ্যমন্ত্রী নীতীশকে কটাক্ষ করে অপেক্ষমান সাংবাদিকদের কাছে তিনি বললেন, ‘মহাজোট’ ভাঙার পদক্ষেপে আসলে বিহারের ১১কোটি মানুষের বিশ্বাস ভাঙা হয়েছে। কিছুদিন আগেও নীতীশের পদক্ষেপকে ‘বিহারবাসীর রায়ের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা’ আখ্যা দিয়েছিলেন শারদ। গত বিধানসভা ভোটের আগে বিহারে জেডি (ইউ), আরজেডি এবং কংগ্রেসকে নিয়ে বিজেপি বিরোধী মহাজোট গঠিত হয়েছিল। কেন্দ্রের শাসকদলের যাবতীয় নির্বাচনী সম্ভাবনার সলিল সমাধি ঘটিয়ে ভোটে জিতেছিল এই জোটই।

শারদ জানিয়েছেন, এই ‘মহাজোট’ ভাঙার ব্যাপারে বিহারবাসীর সঙ্গে ‘সরাসরি কথা’ বলতে চান তিনি। বিজেপি-র সঙ্গে জেডি (ইউ)-র নয়া জোট নিয়েও বিহারবাসীর মতামত বুঝতে চান।

কেন্দ্রে বিরোধী দলগুলির ঘনিষ্ঠ শারদ যাদবের এই সফর ঘিরেই জেডি(ইউ)-র অন্দরে এখন একেবারে থমথমে ভাব। নীতীশের রাজনৈতিক পথের প্রকাশ্য বিরোধিতা করে তাঁর এই কর্মসূচিকে আদৌ ভালো চোখে নিচ্ছে না দলের সরকারি শিবির। এদিনও বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানাতে দলীয় নেতা-কর্মীদের বিশেষ ভিড় দেখা যায়নি। তবে আরজেডি সমর্থকরা হাজির ছিলেন প্রচুর সংখ্যায়।

রাজ্যসভায় জেডি (ইউ) দলনেতা শারদ এদিন বিমানবন্দরে দাঁড়িয়েই নাম না করে নীতীশের বিজেপি-সঙ্গের সিদ্ধান্ত সম্পর্কে নিজের ক্ষোভ উগরে দেন। বলেন, ‘পাঁচ বছরের জন্য বিহারে মহাজোটকে সমর্থন করেছিলেন মানুষ। রাজ্যের ১১কোটি মানুষের আস্থায় আঘাত করা হলো। মহাজোট ভাঙায় আমি নিজেও আহত বোধ করছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘গত ভোটের আগে বি জে পি এবং মহাজোটের নির্বাচনী ইশ্‌তেহার ছিল পুরোপুরি আলাদা, একেবারেই পরষ্পরবিরোধী। দেশের ইতিহাসে এই প্রথম দুটি প্রতিদ্বন্দ্বী জোটের ইশ্‌তেহার মিলেমিশে গেলো!’ তাঁর এই রাজ্য সফরের কর্মসূচি ‘দলবিরোধী কাজ’ হিসেবে গণ্য হবে কিনা জানতে চাওয়া হলে শারদ বলেন, ‘এব্যাপারে আমি কোনও মন্তব্য করবো না।’

print