জোটে কান্ডারি রাহুলই, ইফতারে পাশে প্রণব

জোটে কান্ডারি রাহুলই, ইফতারে পাশে প্রণব

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন

সনিয়া গাঁধী এখনও বিদেশে। দিল্লির পাঁচতারা হোটেলের একটি ঘরে রাহুল গাঁধী অপেক্ষা করছেন প্রণব মুখোপাধ্যায়ের জন্য।

রাহুলের সঙ্গে শরিক দলের নেতা সতীশ মিশ্র, কানিমোঝি, সীতারাম ইয়েচুরি, দীনেশ ত্রিবেদী, শরদ যাদব, দানেশ আলি, বদরুদ্দিন আজমল, ডি পি ত্রিপাঠী, মনোজ ঝা, হেমন্ত সোরেন। আর প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ, প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রতিভা পাটিল, প্রাক্তন উপরাষ্ট্রপতি হামিদ আনসারি।

প্রণব আসতেই সকলকে নিয়ে মূল কক্ষে প্রবেশ করলেন। সেখানেও তখন চাঁদের হাট। দলের শীর্ষ নেতা, কূটনীতিক। সভাপতি হওয়ার পরে শরিকদের নিয়ে প্রথম ইফতার পার্টিতেই সদ্য আরএসএসের সদর দফতর ঘুরে আসা প্রণবকে পাশে বসালেন রাহুল। সনিয়ার অনুপস্থিতিতে এই প্রথম নেতৃত্ব দিলেন বিরোধী জোটের, এবং হাল্কা হাসিঠাট্টায় সকলকে কাছে টেনে বুঝিয়ে দিলেন বিজেপি-বিরোধী তরীর তিনিই কান্ডারি।

চোখে পড়া মতো অনুপস্থিতি অবশ্যই সমাজবাদী পার্টির। কিন্তু আহমেদ পটেল জানান, ‘‘রামগোপাল যাদব রাস্তায় আটকে পড়েছেন।’’ কাশ্মীরের ন্যাশনাল কনফারেন্সেরও কেউ ছিলেন না। তার পরেও এই ইফতারে রাহুল এক ঢিলে তিন পাখি মারলেন। এক, শরিকদের জড়ো করে সাফল্য দেখালেন। দুই, যে প্রণব ক’দিন আগে নাগপুরে গিয়ে সঙ্ঘপিতার স্তুতি করে এসেছেন, সংখ্যালঘুদের অনুষ্ঠানে আজ তাঁকে পাশে বসালেন। তিন, দলের সংখ্যালঘু ভিতটিও মজবুত করলেন।

নরেন্দ্র মোদী এখন বিদেশে গিয়ে ঘন ঘন মসজিদে ঘুরলেও এক সময় তিনি ইফতারের টুপি পরতে চাননি। রাহুল আজ টুপি পরলেন। জোটের সলতেও পাকালেন। নিজের টেবিলে প্রণব, আনসারি, প্রতিভা, সতীশ, সীতারাম, দীনেশকে বসালেন। অনেক ক্ষণ কথা বললেন বিদেশী কূটনীতিকদের সঙ্গে। পাশের টেবিলে জোটের বাকি নেতাদের সামলালেন মনমোহন।

ইফতারে প্রণবকে ডাকা হবে না বলে কংগ্রেসের একাংশ যখন জানিয়েছিল, বিজেপি সে’টি ঘটা করে প্রচার করেছিল। আজ তা নিয়ে চুপ বিজেপি বলছে, প্রথম সারির নেতারা কোথায়? যদিও সঙ্ঘ-ঘনিষ্ঠ রাম মাধবের দাবি, নাগপুরে প্রণব আর মোহন ভাগবত আসলে একই কথা বলেছেন। কিন্তু কংগ্রেস এক নেতা বললেন, ‘‘রাহুল আজ সঙ্ঘকে মাত করলেন। দেখিয়ে দিলেন, বিরোধী জোটের মধ্যমণিও তিনি।’’

print