যুক্তরাষ্ট্রের চাপ সত্ত্বেও রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র কিনবে ভারত

যুক্তরাষ্ট্রের চাপ সত্ত্বেও রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র কিনবে ভারত

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন
এস-৪০০ ট্রায়াম্ফ বিমান প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা

যুক্তরাষ্ট্রের চাপ সত্ত্বেও রাশিয়ার কাছ থেকে ৩৯ হাজার কোটি রুপিতে পাঁচটি উন্নত এস-৪০০ ট্রায়াম্ফ বিমান প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্রব্যবস্থা কেনার চুক্তি বাস্তবায়নে এগিয়ে যাবে ভারত। ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সিতারামন শুক্রবার এ ঘোষণা দিয়েছেন।

কয়েক বছর আলোচনার পর ভারত এখন রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র কেনার চুক্তির চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। রাশিয়ার কাছ থেকে অস্ত্র কেনা হলে সিএএটিএসএ নামের মার্কিন আইনের ফলে ভারত সমস্যায় পড়বে বলে যুক্তরাষ্ট্র হুমকি দেয়া সত্ত্বেও ভারত ওই ক্রয় চুক্তিতে অটল রয়েছে।

সিএএটিএসএকে জাতিসঙ্ঘ নয়, মার্কিন আইন অভিহিত করে সিতারামন বলেন, রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের কোনো একটিকে বেছে নিতে হবে, এমন অবস্থায় ভারত নেই। তিনি বলেন, আমরা মার্কিন কংগ্রেস প্রতিনিধিদলকে বলেছি, প্রতিরক্ষা কেনাকাটাসহ রাশিয়ার সাথে আমাদের সম্পর্ক অব্যাহত থাকবে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া প্রথমে ২০১৫ সালের অক্টোবরে জানায়, রাশিয়ার কাছ থেকে ভারত এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র কেনার কথা ভাবছে। এই ক্ষেপণাস্ত্রের মাধ্যমে আকাশেই শত্রুর বিমান, ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন চিহ্নিত ও ধ্বংস করা সম্ভব।

আগামী সেপ্টেম্বরে যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের মধ্যে ‘২+২’ ডায়ালগে সিএএটিএসএ গুরুত্ব পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ওই সংলাপে সিতারামন ও ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ বৈঠক করবেন তাদের মার্কিন প্রতিপক্ষ জিম ম্যাটিস ও মাইক পম্পেইওর সাথে। গত জুলাইতে বৈঠকটি হওয়ার কথা থাকলেও তা পিছিয়ে সেপ্টেম্বরে নিয়ে যাওয়া হয়।

ম্যাটিস ও পম্পেইও এর আগে ভারতের মতো দেশকে সিএএটএসএ থেকে ছাড় দেয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন।

রাশিয়ার সাথে ভারতের সামরিক ও অন্যান্য সম্পর্ক অনেক দিনের। দুই দেশ বর্তমানে ১২ বিলিয়ন ডলারের একটি চুক্তি নিয়ে আলোচনা করছে। রাশিয়া থেকে কেনা ভারতীয় সামরিক বাহিনীর অস্ত্র সম্ভার মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ওই চুক্তি নিয়ে আলোচনা হচ্ছে।

ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রও বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র বেচাকেনা নিয়ে আলোচনা করছে। দুই দেশ সিওএমসিএএসএ ও বিইসিএ ধরনের চুক্তি নিয়ে আলোচনা করছে। এসব চুক্তি হলে ভারত বেশ সহজে অত্যাধুনিক মার্কিন অস্ত্র কিনতে পারবে।

print