গজনির যুদ্ধে ৮০ আফগান সেনা নিহত

গজনির যুদ্ধে ৮০ আফগান সেনা নিহত

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন

আফগানিস্তানের কৌশলগত নগরী গজনি’তে তালেবানদের সঙ্গে তিনদিন ধরে চলা তীব্র লড়াইয়ে আফগান সরকারি বাহিনীর অন্তত ৮০ সদস্য নিহত হয়েছে।

প্রাদেশিক কাউন্সিল সদস্য নাসির আহমেদ ফারুকি জানান যে নিহতদের লাশ গজনি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

তিনি আরো জানান, নগরীর পুলিশ সদর দফতর দখলের লড়াই চলাকালে দফতরটিতে আগুন লেগে যায়।

ফারুকি বলেন, এই মুহূর্তে পরিস্থিতি খুবই করুণ। সেখানে পুলিশ ও আফগান গোয়েন্দা বাহিনী তালেবানদের সঙ্গে লড়াই করছে। তারা সেনাবাহিনীর কাছ থেকে কোন সাহায্য পাচ্ছে না।

তিনি আরো জানান যে সেনাবাহিনী শহরের উপকণ্ঠে পৌছলেও লড়াইয়ের কারণে তারা শহরের মধ্যে প্রবেশ করতে পারছে না।

গজনিতে বাড়তি সেনা পাঠানো হয়েছে এবং তারা লড়াই করছে বলে আফগান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে দাবি করা হলেও ফারুকির বক্তব্যের সঙ্গে তা মিলছে না।

সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল মোহাম্মদ শরিফ ইয়াফতালি এক টেলিভিশন সাক্ষাতকারে দাবি করেন যে নগরীতে সরকারের সব গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা নিরাপত্তা বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

রোববার সরকার দাবি করে যে বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে সরকারি বাহিনী গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি লাভ করেছে।

শনিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় থেকে বলা হয় এক দিনের মধ্যেই নগরীকে বিদ্রোহী মুক্ত করা হবে।

ওই প্রদেশের সিনেটর মোহাম্মদ রহিম হাসানিয়ার জানিয়েছেন, তালেবানরা বেশিরভাগ সরকারি স্থাপনা ও নিরাপত্তা চৌকিতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। বিদ্রোহীরা এমনকি মোবাইল টেলিফোনের টাওয়ারগুলোও জ্বালিয়ে দিয়েছে বলে জানান তিনি।

হাসানিয়ার বলেন, কাবুল থেকে পাঠানো সেনারা গজনির উত্তর-পূর্বে অবস্থিত রাওজা শহরের পর অগ্রসর হতে পারেনি।

সংঘর্ষের কারণে সব ধরনের যোগাযোগ পরিসেবা বন্ধ হয়ে গেছে এবং নগরির কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না। স্থানীয় সম্প্রচার প্রতিষ্ঠানগুলোও তাদের কার্যক্রম বন্ধ রেখেছে।

শুক্রবার বেশ কয়েক দিক থেকে নগরীর উপর তীব্র হামলা শুরু করে তালেবানরা।

কাবুল ও কানদাহার সংযোগকারী হাইওয়ের মাঝে গজনির অবস্থান। বিদ্রোহীরা এই নগরীর দখল নিতে পারলে তা আফগান সরকারের জন্য বড় ধরনের পরাজয়ের কারণ হবে।

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে বিভিন্ন দিক থেকে নগরীর উপর হামলা করছে তালেবান।

print
SOURCEরয়টার্স
শেয়ার করুন