সুষ্ঠু নির্বাচন ও কার্যকর গণতন্ত্র অপরিহার্য: ড. কামাল

সুষ্ঠু নির্বাচন ও কার্যকর গণতন্ত্র অপরিহার্য: ড. কামাল

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার আহ্বায়ক, সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেন বলেছেন, ‘সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের ভোটে নির্বাচিত প্রতিনিধি দেশ শাসন করবে। নির্বাচন সুষ্ঠু না হলে আপনারা (জনগণ) আপনাদের মালিকানা থেকে বঞ্চিত হবেন। আপনারা সবাই কিন্তু দেশের মালিক হিসেবে আছেন। এই জিনিসটাকে কার্যকর করার জন্য সুষ্ঠু নির্বাচন এবং কার্যকর গণতন্ত্র অপরিহার্য। সুষ্ঠু নির্বাচনের মধ্য দিয়ে আপনারা সবাই স্বেচ্ছায়, নির্ভয়ে, কোনোভাবে প্রভাবিত না হয়ে যাকে মনে করবেন তাকেই নির্বাচিত করতে পারবেন।’

শনিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে যুক্তফ্রন্ট ও জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন তিনি। যখনই নির্বাচন হয় তখনই আমাদের সবাইকে এই আন্দোলনে নামতে হয় দাবি করে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘নির্বাচন কোনও নামকাওয়াস্তে জিনিস না, এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। নির্বাচনে যদি ভেজাল হয়, জনগণ তাদের মালিকানা থেকে বঞ্চিত হয়। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য ঐক্যের প্রয়োজন রয়েছে। প্রতিটি জনগণকে পাহারা দিতে হবে যেন সন্ত্রাস, কালো টাকা, সাম্প্রদায়িকতা থেকে প্রত্যেক এলাকা মুক্ত থাকে। ১৮ বছরের বেশি বয়সী প্রত্যেক মানুষ যেন নির্ভয়ে তাদের ভোট দিতে পারে।’

দেশের মালিকদের ঐক্যবদ্ধ করলে দেশকে অবশ্যই নিয়ন্ত্রণে আনা যাবে দাবি করে এই সংবিধান প্রণেতা বলেন, ‘আমরা আজকে বৃহত্তর ঐক্যের ভিত্তিতে জনগণের শক্তিতে ঐক্যবদ্ধ হয়ে, সুসঙ্গত হয়ে, দেশের মালিক হিসেবে জনগণকে দেখতে চাই। সংবিধানের ৭ম অনুচ্ছেদে লেখা আছে, এই দেশের মালিক জনগণ। মালিকদের ঐক্যবদ্ধ করলে দেশকে অবশ্যই নিয়ন্ত্রণে আনা যাবে। এই যে হত্যা, খুন, রাহাজানি, বিভিন্ন রকমের বিশৃঙ্খলার কথা পত্রপত্রিকায় দেখছেন, আমরা চাই এটা থেকে সমাজ এবং রাষ্ট্রকে মুক্ত করা হোক। সেই মুক্তির জন্য আমি মনে করি আপনারা সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন।’
বৃহত্তর জাতীয় ঐক্যের শুরু এখন থেকেই উল্লেখ করে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘যুক্তফ্রন্ট এবং জাতীয় ঐক্যের যে প্রক্রিয়া এটা আজকে আমরা আপনাদের সামনে তুলে ধরেছি। এই ভিত্তিতে ঐক্যবদ্ধ হয়ে পাড়ায়-পাড়ায়, গ্রামে-গ্রামে, ঘরে-ঘরে ঐক্য গড়ে উঠুক যাতে প্রকৃত অর্থে আমরা বলতে পারি, এ দেশের মালিক আমরা জনগণ। বৃহত্তর জাতীয় ঐক্যের শুরু আজকে থেকে। আপনাদের সবাইকে নিয়ে আমরা সফল হবো বলে আশা করি।’

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণাপত্র পাঠ করেন। তার আগে তিনি বলেন, ‘যেটা আমরা দাবি করছি তা হলো, আমরাই পরিবর্তন আনতে পারি এবং সেই লক্ষ্য নিয়ে যুক্তফ্রন্ট এবং ড. কামাল হোসেনের জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া মিলে আগামী দিনের এই আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য চেষ্টা করছি।’

আ স ম আব্দুর রব বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য একটাই। তাহলো হানাহানি মারামারি, হত্যা, গুম, খুন, রাহাজানি, বিশৃঙ্খলা, অনাচার ও দুর্নীতির হাত থেকে বাংলাদেশকে রক্ষা করা। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাই আমাদের মূল ভিত্তি।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ড. জাফর উল্লাহ চৌধুরী, সুলতান মোহাম্মদ মনসুর ও বিকল্প ধারার সাংগঠনিক সম্পাদক ওমর ফারুক প্রমুখ।

print
SOURCEbanglatribune.com
শেয়ার করুন