পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে উদ্বেগের কারণ নেই, রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক কৌশলগত: রাশিয়া

পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে উদ্বেগের কারণ নেই, রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক কৌশলগত: রাশিয়া

এসএএম স্টাফ,
শেয়ার করুন

পাকিস্তানের সঙ্গে রাশিয়ার সম্পর্ক নিয়ে ভারতের উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। কারণ, নয়া দিল্লির সঙ্গে মস্কোর সম্পর্কটি ‘কৌশলগত ও দীর্ঘ মেয়াদি’ প্রকৃতির। নয়া দিল্লিতে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত বৃহস্পতিবার এ কথা বলেন।

রাশিয়ার দূত নিকোলাই কুদাশেভ বলেন যে পাকিস্তানের সঙ্গে তার দেশের সম্পর্কের লক্ষ্য হলো একটি স্থিতিশীল পাকিস্তান নিশ্চিত করা। যা আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠা ও সন্ত্রাসদমন প্রচেষ্টায় অবদান রাখবে।

গত সপ্তাহে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে বৈঠকাকালে ভারতীয় পক্ষ পাকিস্তান-রাশিয়া সম্পর্ক নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলো কিনা এমন প্রশ্নে কুদাশেভ নেতিবাচক জবাব দেন।

একদল নির্বাচিত সাংবাদিকের সঙ্গে আলোচনাকালে কুদাশেভ বলেন, উদ্বেগের কিছু নেই। এই সম্পর্ক একেবারে স্পষ্ট। আমি যতদূর বুঝি আমাদের একটি স্থিতিশীল পাকিস্তানকে প্রয়োজন। ভারতীয় পক্ষও একই মনোভাব পোষন করে।

পাকিস্তানের সঙ্গে সামরিক মহড়া চালানো প্রশ্নে তিনি বলেন, এটা ছিলো একটি সন্ত্রাসদমন মহড়া। এ নিয়ে চিন্তার বেশি কিছু আর নেই।

দূত বলেন, ভারতের সঙ্গে তুলনা করলে পাকিস্তানের সঙ্গে আমাদের সামরিক ও কারিগরি সহযোগিতা প্রায় শূন্য বলতে হবে। গত কয়েক বছর ধরে পাকিস্তান ও রাশিয়ার মধ্যে সম্পর্ক উষ্ণ হয়ে ওঠা প্রসঙ্গে বলেন, পাকিস্তানকে আঞ্চলিক মূল ধারায় আনতে হলে নতুন কিছু হতে হবে এবং দেশটিকে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের পেছনে আরো বেশি বিনিয়োগে রাজি করাতে হবে।

তিনি জোর দিয়ে বলেন, পাকিস্তানের সাংহাই কোঅপারেশন অর্গানাইজেশনে (এসসিও) যোগদানের মধ্যে দিয়ে প্রমাণিত হয়েছে যে ওই প্রচেষ্টা সফল হয়েছে। তাই এ নিয়ে ভারতের উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু আছে বলে আমি মনে করি না। ভারতের সঙ্গে আমাদের সম্পর্কটি দীর্ঘমেয়াদি কৌশলগত প্রকৃতির। রাশিয়ার কোন কাণ্ডজ্ঞানসম্পন্ন মানুষই ভারতের মূ্ল্যে পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে ‍তুলতে বলবে না। এটা অসম্ভব।

আফগানিস্তানের ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে রাশিয়ার ব্যাপক মতপার্থক্য রয়েছে – এ কথা বলা ঠিক হবে কিনা এমন প্রশ্নে জবাবে রাষ্ট্রদূত ‘হ্যা’ সূচক জবাব দেন।

কুদাশেভ বলেন, কারণ এক দশকের বেশি সময় আফগানিস্তানে সামরিক উপস্থিতি বজায় রাখার পরও যুক্তরাষ্ট্রের কৌশল ব্যর্থ হয়েছে। সেখানে নিরাপত্তা পরিস্থিতির অবনতি ঘটছে এবং যুক্তরাষ্ট্র সেখানকার পরিস্থিতির ব্যাপারে নিরাপত্তা পরিষদে একটি রিপোর্টও পেশ করেনি।

সম্প্রতি মস্কোতে যে আফগান বিষয়ক বৈঠক হওয়ার কথা ছিলো সে প্রসঙ্গে রাশিয়ার দূত বলেন, আফগান পক্ষের অনুরোধে বৈঠকটি স্থগিত করা হয়েছে।

তালেবানরা ওই বৈঠকে যোগ দিতে রাজি হয়। ভারত বৈঠকে যোগদানের বিষয়ে কিছু বলেছিলো কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে কুদাশেভ বলেন, বৈঠকে যোগ দেয়া হবে না এমন কিছু ভারতের পক্ষ থেকে বলা হয়নি। বিষয়টি তালেবানদের সঙ্গে জড়িত হওয়ায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে আফগান সরকার।

কুদাশেভ বলেন যে মোদি-পুতিন বৈঠকে ভারতের এসএসজি’র সদস্য পদের ব্যাপারেও রাশিয়া সমর্থন দেয়। তিনি বলেন, পুতিনের সফরকালে যে বেসামরিক পারমাণবিক সহযোগিতা এমওইউ সই হয়েছে তা ভারতে রাশিয়ার ডিজাইন করা নতুন পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন এবং তৃতীয় দেশের সঙ্গে সহযোগিতার পথ প্রশস্ত করবে।

print
SOURCEপিটিআই
শেয়ার করুন